আজঃ ২রা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ - ১৭ই আগস্ট, ২০১৯ ইং - রাত ৯:২৮

আজ বসন্ত,ফাগুনের আগুন লেগেছে বনে

Published: ফেব্রু ১৩, ২০১৯ - ১০:৪৯ পূর্বাহ্ণ

দেশের কন্ঠ ডেস্ক ঃ এলো বসন্ত ঢাকে পাখি,কি করে মনটা বেঁধে রাখি,একাকি দিন চলে যায়……মন শুধু মন পেতে চায়,হ.হ.হ মন শুধু মন পেতে চায়।
শীতের রিক্ততা শেষে ঋতুরাজ বসন্তের আগমনে প্রকৃতি যেন নতুন করে সাজতে শুরু করেছে । দখিনা বাতাস আর নানা রকম ফুলের সৌরভ জানান দিচ্ছে এসে গেছে ঋতুরাজ বসন্ত। দখিনা বাতাস আর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য মানুষের মনকে করে তোলে উদাসীন। থোকায় থোকায় রক্তরঙ্গা শিমুল আর আগুন লাগা পলাশের সমারোহ, থেকে থেকে কোকিলের কুহুতানে মানুষের মন হয় উচাটন, নিয়ে যায় দূরের কোন ঘাঁসফুল ফোটা মাঠে।সবুজ আম গাছ ঢেকে গেছে হলদে মুকুলফুেল।এক সাথে এত রং, এত বৈচিত্র আর কোন ঋতুতে দেখা যায় না।ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলার পাহাড়ী অঞ্চলের প্রকৃতি যেন সেঝেছে সম্পূর্ণ নতুন রুপে।
কবি সাহিত্যিকরা বলছেন প্রকৃতির রূপের পরিবর্তনের সাথে মানুষের মনের রয়েছে এক গভীর সংযুক্তি।
বসন্ত নিয়ে কবিরা লিখেছেন অনেক কবিতা,গায়কেরা গেয়েছেন অজ¯্র গান। তাদের রচিত সেসব গান আর কবিতায় বসন্তের অপরুপ রুপ প্রকাশ পেয়েছে।
রবীন্দ্রনাথের ভাষায়, আজি দখিন-দুয়ার খোলা,এসো হে,এসা হে,এসো হে আমার বসন্ত এসো।
প্রেমের কবি নজরুল লিখেন, বসন্ত আমাদের মনে শিহরণ তোলে। সেই সঙ্গে ফাগুনের আগুন লাগে বনে।
শীত-কুয়াশার নির্জীব প্রকৃতিকে প্রানবন্ত করে তুলতেই দখিনা বাতাসে বসন্ত ভেসে আসে দূরে মাঠের ধারে সবুজ ঘাস আর পলাশ-পারিজাতের হাত ধরে।প্রকৃতির সাথে তাল মিলিয়ে বসন্তের প্রথম দিনে মানুষও সেজে ওঠে নানান রঙে।তরুণ তরুণীরা আনন্দে মেতে উঠে বসন্ত উৎসবের আয়োজন করে।

আবুল হাশেম

সাধারন সম্পাদক,ধোবাউড়া উপজেলা প্রেসক্লাব।

এ জাতীয় আরো খবর